“মাছ-ভাতের শান্ত বাঙালির লড়াকু রূপ, আহা কি চমৎকার” ~ গিয়াসউদ্দিন সেলিম

প্রথম প্রকাশঃ ২০ শে ফেব্রুয়ারী, ২০১৪, নন্দন/আজকের পত্রিকা/ সমকাল

2015_06_22_03_25_35_0FuZ6hf5WtXJtAePzTVNXF3sF9FYBC_original
গিয়াস উদ্দিন সেলিম:  চলচ্চিত্র ও টিভি নির্মাতা

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পুরস্কার ও সম্মাননা জেতা ‘শুনতে কি পাও’ ছবিটি আগামীকাল রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে দেশব্যাপী ছবিটির বাণিজ্যিক প্রদর্শনী শুরু হচ্ছে। এই উদ্যোগ উৎসর্গ করা হয়েছে প্রয়াত তারেক মাসুদকে। কামার আহমাদ সাইমন পরিচালিত ছবিটির পর্যালোচনা।

২০০৬ সালের কথা। সপরিবার বান্দরবানের মিলনছড়িতে ছুটি কাটাতে গিয়ে এক স্থপতি দম্পতির সঙ্গে আমাদের আলাপ হয়। তাদের একমাত্র ছেলে আমার ছোট ছেলের সমবয়সী… তিন বছর বয়সের দুটি শিশু সহজেই বন্ধু হয়ে উঠেছে… আর আমরা বড়রা নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে, হায়-হ্যালো বলে, ফোন নাম্বার আদানপ্রদান করে কালের গহ্বরে ডুব দিলাম।
সাত বছর পর, ২০১৩ সালের শীতকালে ওই স্থপতি দম্পতির সঙ্গে পুনরায় দেখা কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগার মিলনায়তনে। সারা আর সাইমন, একজন প্রযোজক একজন পরিচালক। তারা ‘শুনতে কি পাও’ নামে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে উদ্বোধনী প্রদর্শনীতে হাজির হয়ে গেলাম। মনে দ্বিধা, আইলাদুর্গত মানুষের জীবন সংগ্রাম, কতই না পানসে লাগবে…।
আনুষ্ঠানিকতা শেষে ছবি দেখার পালা। থিয়েটারের বাতি নিভল, ছবি শুরু হলো… আমি মানসিকভাবে প্রস্তুত ছিলাম, একটি প্রামাণ্যচিত্র দেখব, ধারাবর্ণনা চলবে আর সেই অনুযায়ী দৃশ্যকল্প চলবে। ছবিটা যখন শেষ হলো আমার ভিন্ন অনুভূতি হলো। আমি কি প্রামাণ্যচিত্র দেখলাম? নাকি কাহিনীচিত্র দেখলাম? আলাদা করা যাচ্ছে না তো। চলচ্চিত্রকার তার নিপুণ মুন্সিয়ানার সঙ্গে একটি প্রামাণ্য দলিল কাহিনীচিত্রে রূপ দিয়ে দিলেন। রাঁখি, সৌমেন, রাহুলরা এমন সাবলীল ভঙ্গিতে জীবনের কথা বলে গেল… তাদের নিজস্ব জীবনপ্রণালি পর্দায় অভিনীত হলো… পাকা অভিনেতাকে হার মানিয়ে ফ্রেমে ফ্রেমে জীবনের জয়গান গেয়ে গেল। রাগ, এ যে সত্যিকারের রাগ, অভিমান যেন আরও সত্য, হাসি-কান্না একদমই অকৃত্রিম। গল্পের সঙ্গে পথ চলতে কোনো অসুবিধা হচ্ছিল না। একটা দৃশ্য আমার শিরদাঁড়া সোজা করে দিয়েছে, খর্বাকৃতির কালো মানুষেরা প্রবল বিক্রমে প্রবহমান নদীতে বাঁধ দিচ্ছে… শয়ে শয়ে অগুণতি মানুষ যেন পিরামিড বানাচ্ছে। এটি কোনো বানিয়ে তোলা দৃশ্য নয়। সত্য দৃশ্য। নির্মাণগুণে সত্য দৃশ্যের কাব্যময়তা বাস্তবকে অতিক্রম করে যায়। জাতিসত্তা জেগে ওঠে। মাছ-ভাতের শান্ত বাঙালির লড়াকু রূপ, আহা কি চমৎকার। ১৭শ’ শতকের শেষ দিকে কিংবা ১৮শ’ শতকের শুরুতে পাঁচজন গোরা সৈন্য পাঁচ হাজার বাঙালিকে তাড়িয়ে বেড়ানোর দিন যে শেষ, তা আমার কাছে স্পষ্ট হয়ে যায়। মহান একাত্তর বাঙালি মনোজগতে যে আলোড়ন তুলেছিল… আইলাবিধ্বস্ত মানুষের জীবন সংগ্রামে তার অনুরণন দেখতে পাই।

Screen Shot 2015-04-08 at 11.10.07 AM
বৃষ্টি/ সুতারখালি ভেরিবাধ/ ‘শুনতে কি পাও!’

ওইদিন প্রদর্শনী অন্তে আমার অনুভূতি জানতে চাওয়া হয়। হলভর্তি দর্শকের সামনে আমি একটি কথাই বলেছি… আমরা যারা ফিকশন বানাই এবং যারা দর্শকের ভালোবাসা পাই… আমাদের পা মাটিতে থাকে না… আমরা আকাশে উড়তে থাকি… ‘শুনতে কি পাও’-এর মতো চলচ্চিত্র আমাদের টেনে মাটিতে নামায়।
ইতিমধ্যে চলচ্চিত্রটি এশিয়ার অন্যতম প্রাচীন ও মর্যাদাপূর্ণ মুম্বাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে [মিফ] শ্রেষ্ঠ ছবির সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘স্বর্ণশঙ্খ’ [গোল্ডেন কঞ্চ] জয় করেছে।
গত বছর এপ্রিলে প্যারিসে অনুষ্ঠিত ইউরোপের অন্যতম প্রামাণ্যচিত্র উৎসব সিনেমা দ্যু রিলের ৩৫তম আসরে মূল আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা বিভাগে শ্রেষ্ঠ ছবির জন্য সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘গ্রাঁ প্রি’ জয় করেছিল।
এ ছাড়া ফিল্ম সাউথ এশিয়ায় জুরি অ্যাওয়ার্ড, সুইজারল্যান্ড ও আমস্টার্ডাম থেকে একাধিক অনুদান পুরস্কার, ২০১২ সালে বিশ্বের অন্যতম প্রাচীণ প্রামাণ্য উৎসব ডক-লাইপজিগের [জার্মানি] ৫৫তম আসরের উদ্বোধনী ছবি এবং বিশ্বের বৃহত্তম প্রামাণ্য উৎসব ইডফার [নেদারল্যান্ডস] ২৫তম আসরে আনুষ্ঠানিক ছবির আমন্ত্রণ পেয়েছিল। এ তো ভেতো বাঙালির বিশ্বজয়। সংবেদনশীল দর্শকদের প্রতি আমার অনুরোধ ‘শুনতে কি পাও’ ছবিটি সিনেমা হলে গিয়ে দেখেন। বহু প্রতীক্ষার পর আগামীকাল একুশে ফেব্রুয়ারি বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্সে ছবিটি মুক্তি পাবে। সম্ভবত এটাই বাংলাদেশে প্রথম প্রামাণ্যচিত্রের বাণিজ্যিক মুক্তি, আপনিও হতে পারেন এ ইতিহাসের সাক্ষী।

Advertisements
“মাছ-ভাতের শান্ত বাঙালির লড়াকু রূপ, আহা কি চমৎকার” ~ গিয়াসউদ্দিন সেলিম

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s